কিভাবে একটি কার্যকরী ফেসবুক পোষ্ট তৈরি করতে হয়?

How-to-create-Effective-post-feature-abir-group

 

ফেসবুক এখন আমাদের নিত্য দিনের একটি অংশ। প্রতিদিনই আমরা বিভিন্ন কাজে ফেসবুক ব্যবহার করি। শুধু যোগাযোগ না ব্যবসায়িক প্রচারে বা ব্যক্তিগত সুনাম বৃদ্ধিতেও আমরা ফেসবুক ব্যবহার করি।

ফেসবুক ব্যবহার বা ফেসবুক মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে প্রতিদিন আমাদের ফেসবুক ফিডে পোষ্ট করতে হয়। প্রতিটি পোষ্ট ফেসবুক মার্কেটিং এর জন্য অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ন। যেমন তেমন ভাবে পোষ্ট করলে তা থেকে কোন লাভ আসবে না বরং সময়ের অপচয় হবে এবং সুনাম ক্ষুণ্ণও হতে পারে। পোষ্ট অবশ্যই এমন হতে হবে যেন পাঠক আপনার লেখা পড়ে আপনার সম্পর্কে বা আপনার পণ্য সম্পর্কে আরো বেশি জানতে আগ্রহী হয়। একটি ভালো এবং প্রফেশনাল মানের পোষ্ট তৈরি করতে কয়েকটি বিষয়ের দিকে বিশেষ গুরুত্ব দিতে হয়।

১. ছোট পোষ্ট করাঃ

ফেসবুক পোষ্টের ক্ষেত্রে আমরা কখনো ছোট আবার কখনো বড় পোষ্ট করে থাকি। এই ছোট বড় পোষ্টের মধ্যে ছোট পোষ্ট অনেক বেশি কার্যকরী। অল্প কথায় তথ্যবহুল পোষ্ট যা ফলোয়ারদের উপকারে আসবে সেই ধরনের পোষ্টের এঙ্গেজমেন্ট বেশি হয়। পোষ্ট যদি বেশি বড় হয় তাহলে অনেকে লেখার পরিমাণ দেখে পড়ার আগ্রহ হারিয়ে ফেলে অথবা কিছু অংশ পড়ে বাকি অংশ না পড়েই চলে যায়। আবার পোষ্ট শুধু ছোট হলেই হয় না। পোষ্ট লেখার ক্ষেত্রে কিছু বিষয় মনে রাখতে হয়। যেমনঃ
> পোষ্ট যেন অপ্রাসঙ্গিক না হয়ে যায়।
> পোষ্টে কোন উদাহারণ দিলে বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে উদাহরণ দিতে হবে।
> পোষ্ট একটু বড় হলে কয়েকটি প্যারার মাধ্যমে লেখা।

২. প্রফেশনাল মানের ছবি পোষ্ট করাঃ

ফেসবুকে এঙ্গেজমেন্ট বৃদ্ধি করার জন্য সবচেয়ে কার্যকরী পদ্ধতি হল ছবি। একটি লেখাকে সহজে তুলে ধরে এমন কোন প্রফেশনাল মানের ছবি যখনই কোন লেখার সাথে দেয়া হয় তা খুব দ্রুত ফলোয়ারদের চোখে পড়ে এবং বেশি Reach হয়। ছবিটি দেখার পরেই লেখা পড়ার আগ্রহ বৃদ্ধি পায় এবং আপনার সার্ভিস বা পণ্যের সম্পর্কে জানতে ইচ্ছুক হয়।

৩. ভিডিও পোষ্ট করাঃ 

ভিডিও হল বর্তমান সময়ে অনলাইন মার্কেটিং করার অন্যতম একটি হাতিয়ার। ফেসবুক পোষ্টের ক্ষেত্রেও ভিডিও অনেক কার্যকরী। আপনি একটি ভিডিওর মাধ্যমে আপনার পণ্যের বা ব্যবসায়ের অথবা আপনার ব্যক্তিগত সার্ভিসের তথ্য খুব সুন্দরভাবে তুলে ধরতে পারবেন যা অন্য কোন মাধ্যমে করা যায় না। ফেসবুক পোষ্ট করতে কিছু লেখার সাথে একটি ভিডিও পোষ্ট করলে সেটি আপনার ব্যবসায়ের বিক্রয় বৃদ্ধি করতে অনেক সাহয্য করবে। অনেক সময় ছবির মাধ্যমে একটি পণ্য বা সার্ভিস সম্পর্কে সব তথ্য দেয়া যায় না বা কাস্টমারকে বোঝানো যায় না, সেক্ষেত্রে ভিডিও অনেক বড় ভূমিকা পালন করে, কাস্টমার সহজেই পণ্য বা সার্ভিস সম্পর্কে বুঝতে পারে।

৪. কাস্টমারদের সাড়া দেয়াঃ 

প্রতিটি ফেসবুক পোষ্টের উদ্দেশ্য হল ফলোয়ারদের আকর্ষন করা, তাদের নতুন নতুন তথ্য দেয়া, তাদের কাস্টমারে পরিণত করা। অনেক সময় পোষ্ট পড়ে ফলোয়ারদের মাঝে কিছু না কিছু প্রশ্ন তৈরি হয়। সেই প্রশ্নের উত্তর পাওয়ার জন্য অথবা আরও কিছু জানার জন্য কমেন্ট করে। পোষ্টের কার্যকারিতা বৃদ্ধি করার জন্য এই সকল কমেন্টের বা প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে।

এই সাড়া আবার সঠিক সময়ের মধ্যে দিতে হয়। ফলোয়ার যদি প্রশ্ন করার পর অনেক সময় অপেক্ষা করে তাহলে আপনার এবং ব্যবসায়ের প্রতি তার মাঝে একটি নেতিবাচক ধারণা সৃষ্টি হতে পারে। তাই যথা সময়ে ফলোয়ারদের সাড়া দিতে হবে।

৫. বিশেষ দিনের জন্য বিশেষ পোষ্টঃ

প্রতি বছর কিছু বিশেষ দিন আছে যেমনঃ ঈদ, পহেলা বৈশাখ ইত্যাদি। এই বিশেষ দিনগুলো এঙ্গেজমেন্ট বৃদ্ধি করার জন্য ভালো অবদান রাখে। তাই বিশেষ দিনে অবশ্যই একটি ভালো ছবি যা দিনটিকে তুলে ধরবে, তা দিয়ে পোষ্ট করতে পারেন। এই দিনে যদি আপনি আপনার ফলোয়ারদের স্মরণ করেন, তাদের শুভেচ্ছা জানান, তাহলে তারও কমেন্টের মাধ্যমে শুভেচ্ছা জানাবে। এটি সম্পর্ক বৃদ্ধি করতে এবং নতুন কাস্টমার তৈরি করতে সাহায্য করে।

৬. পোস্টের সাথে ওয়েব সাইটের লিঙ্ক দেয়াঃ

যখন আপনি আপনার ওয়েবসাইটের লিঙ্ক ফেসবুক পোষ্টে দিবেন তখন অটোমেটিক ভাবে ওয়েবসাইট থেকে একটি ইমেজ পাবে এবং ক্লিক করার একটি বড় ক্ষেত্র তৈরি হবে। ওয়েবসাইটে ভিজিটর পাঠানোর জন্য এটি খুব ভালো পদ্ধতি। আপনি চাইলে হেডলাইন ও লিখে দিতে পারেন।

৭. কাস্টমার বা ফলোয়ারদের জিজ্ঞাসা করা বা ইচ্ছা সম্পর্কে জানাঃ

যখন আপনি বুঝতে পারবেন কাস্টমার আপনার পেজ থেকে কি চায় তখন শুধু সেই ধরনের পোষ্ট দেন। তারা যেই পোষ্ট পছন্দ করে না সেই পোষ্ট করা উচিত নয়।

আবার কাস্টমার বা ফলোয়ারদের বিভিন্ন কমেন্টগুলো পড়ে তাদের জিজ্ঞাসা বা ইচ্ছা অনুযায়ী বিভিন্ন পোষ্ট তৈরি করতে পারেন। এই ধরনের পোষ্টের এঙ্গেজমেন্ট অনেক বেশি হয়। যেমনঃ যদি আপনি কোন সার্ভিস বিক্রয় করেন এবং সেই সার্ভিসে কিছু সমস্যা কাস্টমাররা উল্লেখ করলে আপনি তার সমস্যার সমাধান দিয়ে একটি পোষ্ট তৈরি করতে পারেন। আবার ধরুন, একটি পোষ্ট এর মাধ্যমে তাদের জিজ্ঞাসা করা যেতে পারে আপনারা কি কি তথ্য জানতে আগ্রহী, সে সব তথ্য এর উপর নির্ভর করে একটি ভিডিও আপলোড করতে পারেন।

ফেসবুক-এর প্রতিটা পোষ্ট একটি ব্যবসায়ের বা ব্যক্তির জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ন তাই অবশ্যই পোষ্ট করার পূর্বে এই বিষয়গুলো অন্তর্ভুক্ত করে পোষ্ট করা উচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Help-Desk