নতুন বা ছোট ব্যবসায়ের জন্য সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কেন প্রয়োজন?

 

why-social-media-marketing-is-important-for-new-or-small-businesses-Abir-Group

why-social-media-marketing-is-important-for-new-or-small-businesses-Abir-Group

এখন সোশ্যাল মিডিয়ার যুগ। বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়া এর মাধ্যমে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক তথ্য সকলের মাঝে খুব সহজেই পৌছে যায়। এর দাপট প্রতিনিয়ত বাড়ছে। এখন মানুষ ঘুম থেকে উঠেই সোশ্যাল আকাউন্ট দেখে; নতুন কি খবর আছে, কোথায় কি হল, ফ্রেন্ডরা কি করছে তা জানতে চায়।

সোশ্যাল মিডিয়ার এত বেশি জনপ্রিয়তা এবং সকল ব্যবহারকারীর প্রতিদিনের উপস্থিতির কারণে এটি মার্কেটিং এর একটি গুরুত্বপূর্ন মাধ্যম হিসেবে পরিণত হয়েছে।

সহজ ভাবে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বলতে Facebook, Twitter, Istagram, Pinterest, YouTube ইত্যাদি সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে পণ্য এর মার্কেটিং এবং ব্রান্ডিং-কে বোঝানো হয় । যে কোন ব্যবসায়ের জন্য সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং খুবই গুরুত্বপূর্ন। তবে ছোট ব্যবসায়ের ক্ষেত্রে এটি আরও বেশি কার্যকরী।

একটু ভেবে দেখুন বর্তমান বিশ্ব এর কথা, আপনার টার্গেটেড কাস্টমার এর ক্রয় করার পদ্ধতি এর কথা, আমাকে বেশি কিছু বলতে হবে না, আপনি নিজেই বুঝে যাবেন সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর গুরুত্ব। এছাড়া বর্তমানে বিজ্ঞাপন দেয়ার পদ্ধতিতেও অনেক পরিবর্তন এসেছে এবং অনলাইন এ বিজ্ঞাপন দেয়ার মাধ্যমে আপনি টার্গেট করতে পারছেন এবং এর সাথে সাথে আপনার খরচও অনেক কম হচ্ছে, তাহলে কেন নয় সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং?

small-business-moshiur-monty

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে আমাদের একটি সাধারণ সমস্যা হল আমরা বুঝতে পারি না কোন সোশ্যাল সাইট নিয়ে কাজ শুরু করব। অন্যান্য দেশের জন্য কেউ বলে Facebook, Twitter, আবার কেউ বলে Instagram ইত্যাদি। তবে বাংলাদেশের জন্য এখন পর্যন্ত ফেসবুক হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করার সবচেয়ে ভালো সোশ্যাল মিডিয়া। এছাড়া Istagram ও YouTube বেশ ভূমিকা রাখছে। ছোট ব্যবসায়ীদের সম্ভব নয় বড় ব্যবসায়ীদের মত টিভি বিজ্ঞাপন, রেডিও বিজ্ঞাপন বা বড় বড় বিলবোর্ডে বিজ্ঞাপন দেয়া, তাই ছোট ব্যবসায়ের জন্য ফেসবুক মার্কেটিং প্রথম এবং প্রধান পছন্দ হয়ে থাকে, কারণ ফেসবুক এ মার্কেটিং করা সহজলভ্য এবং খরচও তুলনামূলক ভাবে অনেক কম এবং আপনি বিশ্লেষণও করতে পারছেন ।

১. ছোট ব্যবসায়ের জন্য ফেসবুকঃ

যেকোন ছোট বা বড় ব্যবসায় তাদের প্রচারের জন্য এখন ফেসবুককে বেছে নিচ্ছে। ফেসবুক ব্যবহার করে বিভিন্নভাবে অল্প খরচে ব্যবসায় সম্পর্কিত যেকোন তথ্য টার্গেটেড কাস্টমারদের কাছে পৌঁছে দেয়া যায়।

ফেসবুক এমন একটি সোশ্যাল মিডিয়া যেখানে প্রতি জনের গড়ে প্রায় ২০০ ফ্রেন্ড থাকে এবং যদি কেউ একজন কোন কিছু শেয়ার করে এবং তার ২০০ বন্ধু এর থেকে যদি মাত্র ৫জন সেটাকে আবার শেয়ার করে তাহলে প্রায় ১০০০ মানুষের কাছে পৌছে যেতে পারে আপনার পণ্য বা সেবা এর কথা। আমার নিজের মধ্যেই আনন্দ চলে আসলো বিষয়টা ভেবে, নিশ্চয়ই আপনারও এমন অনুভূতি। তাছাড়া ফেসবুককে ব্যবহার করে বিভিন্ন মাধ্যমে একটি পণ্যকে কাস্টমারদের কাছে পৌছানো যায়। ফেসবুকের রয়েছে পেজ, গ্রুপ, ব্যক্তিগত প্রোফাইল, ইভেন্ট এবং অ্যাড সুবিধা। এই পাঁচটি মাধ্যমেই যে কোন বাবসায়িক প্রচার করা যায় অনেক সহজে। যেমনঃ পেজের মাধ্যমে আপনি আপনার সকল ব্যবসায়ের তথ্য, পন্যের ছবি, পণ্য সম্পর্কিত ভিডিও এবং পন্যের মূল্য ইত্যাদি কাস্টমারদের কাছে তুলে ধরতে পারেন। কাস্টমাররা পেজ থেকে সকল তথ্য পাওয়ার পর সহজেই সিধান্ত নিতে পারে তারা পণ্য ক্রয় করবে কি না। গ্রুপের মাধ্যমে গ্রুপের সদ্যসদের সাথে বিভিন্ন তথ্য আদান-প্রদানের মাধ্যমে তাদের সহজে কাস্টমারে পরিনত করা যায়।

এক গবেষণায় জানা গিয়েছে, প্রায় ৯৩ ভাগ মানুষ ফেসবুক ফ্রেন্ড থেকে পাওয়া পরামর্শ বা সুপারিশ গ্রহন করতে পছন্দ করে। আপনার কোন কাস্টমার যদি আপনার পণ্য বা সেবা পেয়ে খুশি হয়ে তার ফ্রেন্ডদের পরামর্শ দেয় ক্রয় করার জন্য তাহলে আপনি তার বন্ধুকেও নতুন কাস্টমার হিসেবে পেতে পারেন। আর যদি একজন না হয়ে বেশি হয় ?

২. সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং সার্চ রাঙ্কিং-এ সাহায্য করেঃ

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং শুধু সোশ্যাল মিডিয়া থেকেই আপনার কাস্টমারদের নিয়ে আসে না। সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং সার্চ ইঞ্জিন-এ আপনার ওয়েবসাইট কে রাঙ্কি করতেও অনেক সাহায্য করে। আপনার ওয়েবসাইট নেই? আমার মনে হয়, ওয়েবসাইট এর জন্য কাজ শুরু করে দেয়া উচিত। একটি ওয়েবসাইট ব্যবসায় এর প্রতি ভোক্তাদের আস্থা বাড়ায়, হয়ত ভাবছেন বাংলাদেশে ওয়েবসাইট ছাড়াও ফেসবুক এর মাধ্যমেও অনেক বিক্রয় হয়, একটু ৫ বছর আগের কথা ভেবে দেখুন, ফেসবুক এর মাধ্যমে বিক্রয় কি হতো? সামনের ৫ বছরে মার্কেটে কি পরিবর্তন আসতে পারে ভেবে দেখেছেন? ভাবুন এবং পারলে এখন থেকেই তৈরি হতে থাকুন, আপনি অনেকের থেকেই এগিয়ে থাকতে পারবেন।

web-ranking-moshiur-monty

৩. সুনাম বৃদ্ধিঃ

সুনাম বৃদ্ধি করতে এখন সোশ্যাল মিডিয়া গুরুত্বপুর্ন ভুমিকা পালন করে। সোশ্যাল মিডিয়াতে সবসময় পোষ্ট শেয়ার করলে নিজেকে সহজেই পরিচিত করানো যায়। এর মাধ্যমে বিভিন্ন প্রফেশনালরা তাদের সার্ভিস বিক্রয় করতে পারে। বিভিন্ন টিপস, প্রয়োজনীয় তথ্যের মাধ্যমে যেকেউ তার নিজের বা ব্যবসায়ের সুনাম বৃদ্ধি করতে পারে।

৪. ব্রান্ড তৈরিতে সোশ্যাল মিডিয়াঃ

অনেক নতুন কোম্পানি সোশ্যাল মিডিয়াতে পণ্য ও ব্যবসায়কে প্রচার করে খুব সহজে ব্রান্ড হিসেবে পরিচিত হয়ে যাচ্ছে। এখন প্রায়ই দেখা যায় বিভিন্ন নতুন কোম্পানী ব্যবসায় শুরু করার সাথে সাথে অ্যাড দেয় ফেসবুকে। সেই অ্যাডটি হয় সাধারণত যত বেশি মানুষের কাছে reach করানো যায় অর্থাৎ দেখানো যায়। এতে মানুষ একটি নতুন কোম্পানীকে চিনতে পারে যা ব্রান্ড তৈরিতে অনেক সাহায্য করে।

৫. খরচ কমঃ

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এত জনপ্রিয় হওয়ার পিছনে সবচেয়ে গুরুত্বপুর্ন কারণ হল এই মার্কেটিং–এ খরচ অনেক কম হয়। আপনি খুব কম খরচে আপনার কাঙ্ক্ষিত কাস্টমারের কাছে আপনার পণ্য সম্পর্কিত তথ্য পৌছে দিতে পারবেন, যা অন্য মাধ্যমে ব্যয়বহুল। যেমন – একজন বেবী পণ্য বিক্রেতা তার পণ্য বিক্রয়ের জন্য অ্যাড দিতে পারে। তিনি সেই অ্যাডটি শুধু মাত্র ২৫-৪০ বছরের বিবাহিত মহিলাদের জন্য তৈরি করতে পারে। এ পদ্ধতি এর মাধ্যমে আপনি সঠিক ভোক্তা বা ভবিষ্যৎ ভোক্তা এর নিকট পৌছাতে পারবেন সহজেই, এটি সম্ভব হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়া এর মাধ্যমেই, অন্যান্য মাধ্যমে এভাবে টার্গেট করা সম্ভব নয়, এমনকি এভাবে টার্গেট এর জন্য আপনার অনেক খরচ হবে না।

এই সকল কারণে এখন ছোট ব্যবসায়ীরা অথবা নতুন ব্যবসায়ীরা ফেসবুকে তাদের পণ্য বা সেবা প্রচার করার জন্য প্রধান মাধ্যম হিসেবে নিয়েছে এবং তারা সফলতাও পাচ্ছে। নিশ্চয়ই বুজতে পারছেন, যত দেরি করছেন আপনার ততই ক্ষতি হচ্ছে। আপনার ব্যবসায় এর জন্য রইল সুভকামনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Help-Desk