ফেসবুক পেজের এডমিন ও তাদের দায়িত্বসমূহ

Facebook page admin and their responsibilities-abir-group

Facebook page admin and their responsibilities-abir-group

ফেসবুকের গুরুত্বপূর্ন সার্ভিস গুলোর মধ্যে অন্যতম একটি সার্ভিস হলো ফেসবুক পেজ। ফেসবুক পেজ এমন ভাবে তৈরি যাতে যে কোন ব্যবসায়ের বা ব্যক্তির সকল রকম গুরুত্বপূর্ন এবং নতুন সব তথ্য থাকে। তাই যে কেউ একটি পেজ দেখলেই সেই ব্যবসায়ের সম্পর্কে অনেক তথ্য পেতে পারে।

অনেক ব্যবসায়িক পেজের কর্তৃপক্ষ সময়ের অভাবে সেই পেজ পরিচালনা করতে পারে না অথবা অনেক কিছু না জানার কারণে সে পেজ পরিচালনা করতে পারে না কিন্তু তার একটি ফেসবুক পেজ থাকাটা খুব জরুরী। সে জন্য ফেসবুক কর্তৃপক্ষ একটি ফেসবুক পেজের ৫ ধরণের পরিচালক (এডমিন) রাখার সুবিধা দিয়ে থাকে।
যেমন-

  • এডমিন,
  • এডিটর,
  • মডারেটর,
  • অ্যাডভার্টাইজার এবং
  • এনালিস্ট ।

তবে তাদের কাজের এবং পেজ পরিচালনার ক্ষেত্রে ক্ষমতা ভিন্ন। সবাই চাইলেই সবকিছু করতে পারবেন না। এডমিন ছাড়া বাকি সকল পরিচালনাকারীর জন্য তাদের কাজ করার ক্ষমতা সীমাবদ্ধ।

একজন পেজ মালিকের তার পেজ পরিচালনার জন্য কাউকে নিয়োগ দেয়ার পূর্বে বিভিন্ন পরিচালনাকারীর ক্ষমতা সম্পর্কে জ্ঞান থাকা প্রয়োজন।

যখন আপনি ১টি পেজ খুলবেন, আপনি অটোমেটিক এডমিন হয়ে যাবেন। একজন এডমিন পেজের সব ধরণের পরিবর্তন করতে পারে। বাকীরাও অনেক কাজ করতে পারে। নিচে প্রত্যেক পরিচালনাকারীর কাজের ক্ষমতা উল্লেখ্য করা হলোঃ

১. এডমিনঃ

একজন এডমিন হল পেজের সকল ক্ষমতার অধিকারী। সে পেজের সব ধরনের কাজ করতে পারে। যেমনঃ সেটিংস পরিবর্তন করা যা অন্য কোন পরিচালনাকারী করতে পারে না। এছাড়া পেজ এডিট করা, পোষ্ট এডিট করা, ডিলিট করা, অ্যাপস ব্যবহার করা, অ্যাড তৈরী, ছবি আপলোড করা বা ভিডিও আপলোড করা এবং কেমন ভিজিটর পেজে আসছে, কি পরিমান ক্লিক হচ্ছে ইত্যাদি জানার জন্য ইনসাইট দেখা, এক কথায় তিনি সব কিছু করতে পারেন। এছাড়া সে অন্যান্য পরিচালনাকারী যেমন এডিটর, মডারেটর,অ্যাডভার্টাইজার, এনালিস্ট সবাইকে নিয়ন্ত্রন করতে পারে (নতুন কাউকে যুক্ত করা, পূর্বের কাউকে বাদ দেয়া)।

২ এডিটরঃ

এডমিন যখন পেজ পরিচালনার সময় পান না তখন সে একজন এডিটর নিয়োগ দেন। একজন এডিটর পেজের সেটিংস এবং অন্যান্য পরিচালনাকারীদের নিয়ন্ত্রন ছাড়া অন্যান্য সকল কিছু করতে পারে। যেমনঃ যেকোন প্রয়োজনে পেজ এডিট করা, কোন পোস্ট ডিলিট করার দরকার হলে ডিলিট করা, অ্যাপ যোগ করা ইত্যাদি। যেকোন কমেন্ট ডিলিট করার ক্ষমতাও এডিটরের আছে। আরেকটি গুরুত্বপূর্ন কাজও একজন এডিটর করতে পারে। তাহলো যেকোন সময় যেকোন ব্যক্তিকে ফেসবুক পেজ থেকে রিমুভ করতে পারে। যা স্প্যামিং রোধে অনেক বেশি প্রয়োজন ।

৩. মডারেটরঃ

ফেসবুক পেজের মডারেটর শুধু মেসেজ এবং কমেন্ট করতে পারে কিন্তু কোন কিছু ডিলিট করতে পারে না। তাছাড়া একজন মডারেটরও যে কাউকে পেজ থেকে নিষিদ্ধ করে দিতে পারে। মডারেটর আরও ২টি গুরুত্বপূর্ণ কাজ করতে পারে যেমনঃ অ্যাড তৈরি, ইনসাইট দেখা। এছাড়া পেজের হয়ে Message-এর উত্তরও দিতে পারেন।

৪ অ্যাডভার্টাইজারঃ

অনেক সময় দেখা যায়, পেজ এডমিন এর ফেসবুক অ্যাড সম্পর্কে ধারণা কম থাকে। সে সময় একজন অ্যাডভার্টাইজারের প্রয়োজন হয়। তখন তিনি একজন অ্যাডভার্টাইজার নিয়োগ দেন। অ্যাডভার্টাইজারদের পেজ পরিচালনার ক্ষমতা থাকে সীমাবদ্ধ। তারা শুধু অ্যাড তৈরি এবং ইনসাইট ব্যবহার করতে পারেন। অনেক এজেন্সি রয়েছে যারা এই অ্যাডভার্টাইজিং সেবা দিয়ে থাকে। তাদের অ্যাডভার্টাইজার ক্ষমতা দেয়া হয়।

৫. এনালিস্টঃ

একজন এনালিস্ট এর কাজ হল ফেসবুক পেজকে বিশ্লেষণ করা। তারা দেখে পেজে কত ভিজিটর আসে, তারা কি ওয়েবসাইটের লিঙ্কে ক্লিক করে কি না, কোন সময়ে বেশি ভিজিটর আসে ইত্যাদি। যেহেতু এনালিস্টকে পেজ এর এ সকল তথ্য নিয়ে বিশ্লেষণ করতে হয় তাই সে ইনসাইট দেখার অনুমতি পায়।

বিভিন্ন প্রয়োজনে অনেকে পেজ রক্ষনাবেক্ষনের জন্য এডমিন নিয়োগ দেয়। নিয়োগের পূর্বে অবশ্যই এই  বিষয়গুলো ভেবে নেয়া দরকার। অন্যথায় কোন ভুল হলে আপনার ব্যবসায়িক পেজ আপনার হাত ছাড়া হয়ে যেতে পারে । সাধারণত, এডিটর ও অ্যাডভার্টাইজার এই দুটি পাওয়ার প্রদান করা হয়ে থাকে, অন্য গুলো তেমন একটা প্রয়োজন হয় না।

facebook-page-admins-and-responsibilities-moshiur-monty

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Help-Desk